সীমান্তে

Friends, Love Story, Marriage, Saddest Stories Are The Best Stories, Short Story, আনন্দ আকাশ, বাংলা

আজকের দিনটা খুবই স্পেশাল বিমল আর প্রতিমার জন্য। আজকের দিনেই তো বিমল প্রথম প্রতিমাকে দেখেছিলো।

আজও সেদিনটার কথা মনে পড়লে ঠোঁটের কোনে অজান্তেই হাসি চলে আসে।

কলেজের প্রথম দিন, গ্রাম থেকে প্রথম মফঃস্বলে এসেছে বিমল। পড়নে সাদা পাজামা, সুতির শার্ট, পায়ে হাওয়াই চপ্পল, মাথায় তেল দেওয়া চুল পরিপাটি করে আঁচড়ানো। ছোটোখাটো চেহারার বিমলকে ঢোলাঢালা শার্টে  আরো বেঁটে লাগছিলো, মুখে ছড়ানো  সারল্য, ভাষায় গ্রাম্য টান। অল্পক্ষনের মধ্যেই সকলের মজার পাত্র হয়ে উঠলো সে। ও যাই বলে বাকিরা হেসে লুটিয়ে পরে, সেসময় প্রতিমা এসে ওকে বাঁচিয়েছিলো।

তার পর ভালোলাগা, ভালোবাসা ও বিয়ে। প্রতিমার গোঁড়া পরিবার অব্রাহ্মণ বিমলকে মেনে নেই নি। দুজনে শহরে এসে নতুন জীবন শুরু করে।

আজ পঞ্চাশ টা বসন্ত পরে ওদের ভালোবাসায় চির ধরে নি এতটুকু। প্রতি বছর এই দিনটা ওরা একসাথে কাটাই, বিমল প্রতিমা কে কিছু উপহার দেয়, আর প্রতিমা বিমলের জন্য ওর পছন্দমতো রান্না করে।

আজ সকালেও বিমল একটা ভালো শাড়ি কিনে প্রতিমার পাশে গিয়ে ওর হাতটা নিজের হাতের উপর রাখলো| সবুজ চাদরের উপর  জীর্ণ শরীর টা প্রায় মিশে গেছে প্রতিমার| ওকে দেখে চোখের কোণে উজ্জ্বলতা ক্ষনিকের জন্য ফিরে  এলো প্রতিমার, ক্যান্সার এখনো ওর সুন্দর চোখের হাসি  নষ্ট করতে পারে নি।

প্রতিমা আস্তে আস্তে বললো, ” এবার আর তোমাকে কিছুই দিতে পারলাম না!!”-  অসহায় গলা বুজে এলো কান্নায়।

বিমল নির্বাক হয়ে  প্রতিমার হাতটা আরো জোরে চেপে ধরে | অবুঝ মন গুমড়ে ওঠে – ” আরো কিছু ক্ষণের নিঃশ্বাস আমাকে তুমি উপহার দিও”| অবাধ্য চোখের একফোঁটা জল বাঁধ মানে না |

 

XXX[/su

লেখক পরিচিতি ~ আনন্দ

প্রচ্ছদচিত্র উৎস kindnessblog.com

প্রচ্ছদচিত্র অলঙ্করণ ~ Anari Minds

Leave a Reply