রোজনামচা

Conversation, Friends, Humor, Love Story, Marriage, Short Story, বাংলা

ছেলেটাকে ঘরের আশেপাশে দেখা যাচ্ছে না । কোচিং ক্লাসে যাবে, ওঘরে চুলে মাঞ্জা দিচ্ছে নির্ঘাৎ । 
একটু এদিক ওদিক দেখে নিয়ে ভবতোষ সরকার আনন্দবাজারটাকে ভাঁজ করে লুঙ্গিটাকে সাজানো ভুঁড়ির তলায় গিট্টু মেরে গুছিয়ে নিয়ে চায়ের কাপটা হাতে নিয়ে রান্নাঘরের চৌকাঠে গিয়ে দাঁড়ালেন । 

তারিণীদেবী অর্থাৎ মিসেস সরকার তখন মন দিয়ে চারাপোনার ঝোল আর বেগুনভাজায় মগ্ন । 

বেশ আবেগে গদগদ হয়ে স্বরটাকে গাঢ় করে ভবতোষ বললেন – 

“ইয়ে গিন্নী, ভাবছিলামএকটা কথা বলবো । বলি? “

– “মাথা খেও না । অনেক কাজ পড়ে আছে । যা বলার তাড়াতাড়ি বলে চানে যাও । “

– “ইয়ে মানে বলছিলাম কী, তুমি বোধহয় আজকাল ভাবো আমাদের মধ্যে সব ইয়ে শুকিয়ে গেছে । তুমি কেমন যেন দূরে দূরে চলে যাচ্ছো । কিন্তু তুমিও জানো ইয়ে মানে তা তো সত্যি নয় । ওই কী বলে সময়ের অভাব আর এই বিভিন্ন যত রাজ্যের টেনশনই সব নষ্টের গোড়া । ভেবে দেখলাম, নাহ, যা করার আমাকেই করতে হবে, ইনিশিয়েটিভ নিতে হবে । আজ সকাল থেকেই আমার মনে কীরম যেন হচ্ছে । এই পুরো হপ্তাটাই কেমন যেন তুমি তুমি ভাব । 

আমি ভাবছি … মানে ভেবেই নিয়েছি, তোমায় আমি রোজ দেবো । মানে দেবই । প্লিজ না কোর না । দিলে নেবে তো গিন্নী ? “
তারিণীদেবীর গালটা লাল হয়ে উঠলো । না না, লজ্জায় নয়, মাথার গরমে । জ্বলে গেল সব । তেলে আর বেগুনে । 

– “ মুখপোড়া, জীবনটাকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে শেষ করলে গা । হাতের কুটোটি নাড়বে না, বসে বসে শুধু কাগজ মুখস্থ করবে আর এই শেষ বয়সে এসে সক্কাল সক্কাল কাজের সময়ে নোংরা নোংরা  কথা !  কোন মুখের আগল নেই, মুখপোড়া মিনসে ! ছেলেটা শুনলে লজ্জার একশেষ হবে । বেরোও এখান থেকে “
কাৰ্নিস থেকে দুটো কাক আর ট্রপোস্ফিয়ার থেকে তিনটে চিল উড়ে স্ট্র্যাটোস্ফিয়ারে চলে গেলো । 

ভবতোষ সরকার কান মাথা চুলকোতে চুলকোতে ফিরে এসে হুব্বা হয়ে বসে রইলেন, এখনও বুঝে উঠতে পারছেন না খারাপটা কী বললেন । 
ফেসবুকটা খুলে আবার ছেলের প্রোফাইলটার পানে চাইলেন । 

সকালে ঘুম থেকে উঠেই শ্রীমান আদিত্য সরকার পোষ্ট করেছেন যে – 

‘হ্যাপি রোজ ডে টু ইউ’, তাতে পনেরো জন বান্ধবী ট্যাগড ।

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~

Author – সৌরভ মুখার্জী

Cover Image – dreamstime.com

Cover image design- AnariMinds

Leave a Reply