বাঁদরনাচ

এ রামোঃ! পুঁটলি কোথায়? এ তো একটা বাঁদর! ওই তো, আরেকটা বাদামীর ওপর হলুদ চকরাবকরা পুঁটলিও নড়ছে। দুটো বাঁদর, মানে একটা বাঁদর আর আরেকটা বাঁদরী। অন্তত ওদের বেশভূষা তাই বলছে।

লেখিকা ~ সুস্মিতা কুণ্ডু

ঢিলে ইস্ক্রুপ

হ্যাঁ আজই, ও দিকে ব্যাটা গেঁজেল ভোলানাথ বসে আছে তার জাংকইয়ার্ড নিয়ে। আমার অপারেশনাল স্ফিয়ার থেকে বেরুলেই খপাত করে যন্তর গুলো ধরে ক্রাশারে ভরবে।

লেখক ~ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়

আরোগ্য

আজ যেন বড় ক্লান্ত দেখাচ্ছে ওকে। এলোমেলো মাথার চুল, গাল ভর্তি দাড়ি। চোখের তলায়ও কালি পড়েছে ; বুঝলাম অত্যাধিক দুঃশ্চিন্তায় রাত জাগার ফল এটা। শরীরও ভেঙেছে এ কয়েকদিনে। তবে, এসবের মধ্যেও তার চোখে একটা চাঞ্চল্যের ভাব লক্ষ্য করলাম।

লেখক ~ সুদীপ্ত নস্কর
#AnariMinds

তেমাথার যীশু

পলিথিনের ব্যাগটা দুলাতে দুলাতে শ্রী হাউসিংয়ের গলিটার দিকে মিলিয়ে যায় ঋতু। লাল গোলাপী বেলটার দিকে একবার তাকায় ভিকি। অনেক অনেকদিন আগে অঞ্জনদা এক্সমাসে একটা কেকের বাক্স দিয়েছিল সবাইকে। তাতে সান্টাক্লজের হাতে ছিল একটা সোনালী রঙের বড় একটা বেল।

লেখিকা ~ পিয়া সরকার
#AnariMinds

ইচ্ছেডানা

আমি গাড়ি চড়তে খুব ভালোবাসি, ছোটবেলায় বাবার গাড়িতে উঠলে আর নামতে চাইতাম না, গাড়ি সিগন্যালে দাঁড়ালে মাকে মারতাম যেন মায়ের জন্যই গাড়িটা চলছে না – আসলে গাড়িটা চললে আশেপাশের সব কিছু মুভিং লাগতো আমার, গাছ বাড়ি গাড়ি দোকান সাইকেল লোকজন সবাই পেছনে সরে সরে যাচ্ছে – আর দাঁড়িয়ে থাকলে খুব অস্বস্তি হতো।

লেখক ~ ছন্দক চক্রবর্তী
#AnariMinds

কলকাতার শীত

বাঙালি শীতচাতক। অর্থাৎ শীতকাল কবে আসবে সে জিজ্ঞাসা তার কথা, কলম আর কীবোর্ডে সতত বিদ্যতে। পুজো সেপ্টেম্বরেই হোক না কেন, কোজাগরী থেকে বাঙালির ‘ঠান্ডা’বোধ হতে থাকে। ভোরের কুয়াশাঘেরা চায়ের দোকানে অথবা অফিসফেরত পাড়ার মোড়ের টুপটাপ হিমপড়া আড্ডায়, একজন থাকবেই যে বলে উঠবে, “এবার কিন্তু বেশ ঠান্ডা পড়বে, দেখে নিস!”

লেখক ~ সপ্তর্ষি বোস
#AnariMinds

বাকিটা ইতিহাস

কাবুল ছাড়িয়েছি দশ ঘন্টা আগে,মাঝখানে দু তিন বার গাড়ি থেমেছিল প্রাকৃতিক প্রয়োজনে।কিছু খাওয়াও হয়নি গত বারো ঘন্টায়,আগের বার যখন নেমেছিলাম স্ফীত ব্লাডারকে খালি করতে,তীব্র হাওয়ায় দাঁড়াতে পারছিলাম না।তুষারপাত হচ্ছে ক্রমাগত।তুষারপাতের ফলে রাস্তা বন্ধ হয়েছেও কয়েকবার।

লেখিকা ~ পিয়া সরকার
#AnariMinds

পাণ্ডুলিপি

– টেবলটা ওইদিকে। বইমেলায় রিলিজ করতে হলে আর দেরী করলে চলে নাকি মশাই!
– মুন্সীবাবু, এইবারটা থাক। বই করার দরকার নেই।
– অ্যাঁ! বই থাক! কী বললেন?
– আজ্ঞে, আপনার শ্রবণশক্তি লাজবাব।

লেখক ~ সপ্তর্ষি বোস
#AnariMinds