রাজায় রাজায় যুদ্ধ – ১ – মৃত্যুর একদিন আগে

স্যান্ডি এসে শুয়ে পড়ল আবার দৈত্যের পাশে। ফিউজ থেকে কিছুই বোঝা যাচ্ছে না। অদ্ভুত এক অনুভূতি আসছে মনে। যতই মন শক্ত থাকুক না কেন, খালি মনে হচ্ছে একটু বাদেই প্রচন্ড বিস্ফোরণের শব্দে কেঁপে উঠবে চারিদিক, দুজনের দেহ ছিন্নবিচ্ছিন্ন হয়ে ছড়িয়ে পড়বে চারিদিকে, কালকের সকাল আর দেখা হবে না।

লেখক ~ অরিজিৎ গাঙ্গুলি
#AnariMinds #ThinkRoastEat

হায়রোগ্লিফের দেশে-৪ মমির গল্প ( দ্বিতীয় পর্ব)

ছয় সপ্তাহ ধরে গ্রেনভিল একটু একটু করে মমির গায়ের কাপড়ের প্যাঁচ খুললেন। কাপড়ের ভাঁজের মধ্যে পাওয়া গেল কয়েকটা নীলচে কাঁচের ছোট ছোট গুলি আর গমের দানা। পুরোটা খুলে ফেলার পরে বোঝা গেল সেটি এক নারীর। শরীরটা শুকিয়ে এলেও পেটের চামড়া থেকে বোঝা যায় জীবদ্দশায় ইনি বেশ মোটা সোটা ছিলেন। মমির গোটা শরীরে লাগানো ছিল মোম আর বিটুমেনের মিশ্রন। গ্রেনভিল ভেবেছিলেন এই দিয়েই সংরক্ষন করা হয়েছিল এই মহিলাকে।

হিস্ট্রির মিস্ট্রি-১৫ ভালোবাসার মৃত্যুরা

সব হারিয়েছে ওফেলিয়া, আজ ও বীতশোক। পরিস্থিতির আঘাতে ওর মস্তিষ্কেও জট পাকিয়েছে যে। সেখানে ভূত,ভবিষ্যত, বর্তমান… কিচ্ছু নেই। ওফেলিয়া উন্মাদ হয়ে গেছে। ওর আত্মাটা আর নেই যেন ওর শরীরে। তাই ছোট নদীটায় যখন ও আজকে পরে গেল তখন আর উঠে আসার কোন চেষ্টা ছিল না। চারপাশে নুয়ে থাকা রঙিন ফুলগুলোও টানেনি আজ ওকে।

হায়রোগ্লিফের দেশে- ৩ মমির গল্প

…এতো কিছুই নয়, মমি খাওয়ার কথা কখনও ভাবতে পারো?
কথাটা শুনেই আমার গা গুলিয়ে উঠল। পিজিও দেখলাম একবার ওয়াক করল। মমি আবার খাবে? ভবেশদা আমাদের মুখের দিকে তাকিয়ে একবার হাসল এবারে, তারপরে ব…

হায়রোগ্লিফের দেশে ২ মৃতের বই

ইজিপশিয়ানদের মৃত্যুর পরের জগৎটা পুরোটাই মাটির নিচে। সেই জগতের দেবতার নাম ওসাইরিস। অনেকটা আমাদের যম বা গ্রীক দেবতা হেইডিসের মতো। তোমার এই মরে যাওয়ার পরের যে জার্নিটা হবে সেটাতে তোমার নামের আগে ওসাইরিস বসে যাবে।

হায়রোগ্লিফের দেশে- ১ প্রথম পিরামিড

ধুস, লিওনার্দো তো কালকের ছেলে। ইমহোটেপ ওকে বলে বলে দশটা গোল দিত। তো যাই হোক, রাজা তো ইমহোটেপকে ওর কবর খানা বানাতে বলে খালাস। কিন্তু সেই জিনিস বানানো যায় কি করে! পাথরের ওপরে পাথর বসিয়ে উঁচু কিছু বানাতে গেলেই যে ব্যালান্স নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

ভূত আমার পূত – শেষ গল্প ~ কার্নিশ

এই ঘটনার পর থেকেই অ্যাপার্টমেন্ট জুড়ে আর এক কাণ্ড শুরু হল। রোজ রাত ৩ টে থেকে ৩:১০ এর মধ্যে সবার ফ্ল্যাটের বাইরের গ্রিলের তালা বেশ ঝনঝন করে নড়ে উঠতে থাকল। প্রথমে সবাই ভেবেছিলেন যে মাঝরাতে কারুর কোনও এমার্জেন্সি হয়েছে হয়তো। কিন্তু পরে সোসাইটির মিটিং-এ জানা গেল ওইসময় কেউই বাইরে বেরোয় না।

লেখক ~ অরিজিৎ গাঙ্গুলি
#AnariMinds #ThinkRoastEat

ভূত আমার পূত – গল্প ৩ ~ কড়ে আঙুল

যখন কেউ পজেস্ড হয়, মানে কাউকে ভুতে ধরে, তখন তার কড়ে আঙুলের ডগা চেপে ধরে থাকলে আত্মা সেই দেহে বেশিক্ষণ থাকতে পারে না, বেরিয়ে চলে যায়। এই বিশ্বাস চরণের বাড়ির লোকেদের, আগেও এটা নাকি অনেকবার প্রমাণিত হয়েছে। বোন এই জিনিসটা করার সাথে সাথে নতুন বৌয়ের কেমন একটা অস্বস্তি লক্ষ্য করা গেল।

লেখক ~ অরিজিৎ গাঙ্গুলি
#AnariMinds #ThinkRoastEat

ভূত আমার পূত – গল্প ২ ~ ফরাসী হোটেল

হৃৎপিণ্ড টা খুলে হাতে চলে আসবে মনে হচ্ছে। এক মুহূর্তের জন্য মনে হল ব্যালকনি দিয়ে নিচে নামার কোন রাস্তা পাওয়া যায় কিনা। পাশের ব্যালকনি টাও বেশ দূরে। বেশ খানিকটা সাহস সঞ্চয় করে আমার নর্মাল খাট ওয়ালা ঘরের দরজার হাতল ঘোরালাম, খুলে গেল। পর্দা সরিয়ে ঘরে ঢুকলাম।

লেখক ~ অরিজিৎ গাঙ্গুলি
#AnariMinds #ThinkRoastEat